মালয়েশিয়ায় এক বার্গার বিক্রেতার গল্প

আমার বাসার ঠিক নিচে রাস্তার পাশে বিকাল ৫টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বার্গার বিক্রি করতে দেখি এক বার্গার বিক্রেতাকে। একদিন জিজ্ঞেস করে জানতে পারলাম এটাই তার একমাত্র আয়ের উৎস। দুইসন্তান ও পরিবার নিয়ে একটা ফ্ল্যাটে থাকে, যার ভাড়া বাংলাদেশি টাকায় ২৬ হাজার।

এই বিল্ডিংয়ে বসবাসকারীদের জন্য রয়েছে সুইমিংপুল, জিম, বাচ্চাদের খেলার জায়গা, ছোট একটা পার্ক, হাঁটাহাঁটির জন্য রানিং ট্রাক, বেবি কেয়ার সেন্টার আরো অনেক সুবিধা।

শুধু বার্গার বিক্রেতা নয়, ট্যাক্সি ড্রাইভারসহ অনেক নিম্ন আয়ের মানুষই এমন সুবিধা-সম্পন্ন বাসায় থাকতে পারেন । অনেকে সেকেন্ডহ্যান্ড বা ব্র্যান্ড নিউ প্রাইভেট কার-ও ব্যবহার করেন।

ঢাকা শহরে ঠিক কত টাকা আয় করলে একজন মানুষ এরকম সুবিধা-সম্পন্ন বাসায় থাকতে পারেন ? হিসাব মিলছে না তো? মেলার কথাও না, এই অংকের হিসাব মেলানোর জন্য যথাস্থানে সৎ ও মেধাবী মানুষের যে বড়ো অভাব। যে শহরে অনার্সমাস্টার্স করেও একটা ছোটোখাটো চাকরি খুঁজতে জুতার নিচে ক্ষয় হয়ে যাই, সেখানে জীবনযাত্রার মান নিয়ে কথা বলা বড়ই বেমানান। আর্থ-সামাজিক অবস্থার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ উন্নয়ন আজ শুধু সময়ের দাবি।

মুহা: মাহফুজুর রহমান, সিনিয়র লেকচারার, ইউনিভার্সিটি অফ মালায়া, মালয়েশিয়া

Leave a Reply