করোনাভাইরাসের কার্যকর ভ্যাকসিন আবিষ্কার

নতুনপাতা ডেস্ক : কোভিড-১৯ এর পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিন ৯০ শতাংশেরও বেশি কার্যকর বলে দাবি করছে ফাইজার ইনক। মহামারীটির বিরুদ্ধে এটি সবচেয়ে সফল ভ্যাকসিন বলে মনে করা হচ্ছে, যে মহামারী বিশ্বব্যাপী এক মিলিয়নেরও বেশি মানুষের জীবন কেড়ে নিয়েছে। বিশ্বের অর্থনীতিকে করেছে ভঙ্গুর এবং প্রতিদিনের জীবনযাত্রাকে করেছে বিপর্যস্ত।

ফাইজার এবং বায়োএনটেক এসই প্রথম ড্রাগ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান যারা করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের বৃহত্তর ক্লিনিকাল ট্রায়াল থেকে সফল তথ্য প্রকাশ করেছে। সংস্থাগুলো জানিয়েছে যে, তারা এখনও পর্যন্ত এই ভ্যাকসিনে কোনও গুরুতর সুরক্ষা উদ্বেগ খুঁজে পায়নি। ১৬ থেকে ৮৫ বছর বয়সী লোকদের জন্য এই ভ্যাকসিনটি জরুরিভাবে ব্যবহারে এই মাসে মার্কিন অনুমোদনেরও প্রত্যাশা করছে তারা।

অনুমোদিত হলে, ডোজ সংখ্যা প্রাথমিকভাবে সীমাবদ্ধ থাকবে এবং ভ্যাকসিনটি কতক্ষণ সুরক্ষা দেবে তা সহ অনেক প্রশ্ন থেকেই যায়। তবে এই খবরটি আশা জাগিয়েছে, অন্যান্য আরও যে ভ্যাকসিনগুলোর কাজ চলছে সেগুলো কার্যকর হতে পারে।

ফাইজারের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী অ্যালবার্ট বোরলা বলেন,”আজ বিজ্ঞান ও মানবতার জন্য দুর্দান্ত একটি দিন, আমরা আমাদের ভ্যাকসিন ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামে এমন এক সময়ে গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলকে পৌঁছাতে যাচ্ছি যখন সংক্রমণের হার নতুন রেকর্ড স্থাপন করছে, এবং হাসপাতালগেুলো ধারণ ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে ও অর্থনীতি পুনরায় চালু করার জন্য সবচেয়ে বেশি জরুরি হয়ে পড়েছে।”

এই ঘোষণার পরে বিশ্ব শেয়ারবাজারের এমএসসিআই সূচক রেকর্ড পর্যায়ে উঠেছে। ফাইজারের শেয়ারগুলো নিউ ইয়র্কে ৬ শতাংশ বেড়েছে, অন্যদিকে বায়োএনটেকের মার্কিন স্টকটি বেড়েছে ১৮ শতাংশ।

ফাইজারের শীর্ষ ভ্যাকসিন বিজ্ঞানীদের একজন বিল গ্রুবার একটি সাক্ষাৎকারে বলেন, “আমি আনন্দিত হওয়ার খুব কাছাকাছি। এটি জনস্বাস্থ্যের জন্য এবং আমরা এখন যে পরিস্থিতিতে রয়েছি সেখান থেকে সবাইকে বের করে আনার জন্য এটি একটি দুর্দান্ত দিন।”

ইতালির রোমের সাপিয়েনজা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্রামক রোগের অধ্যাপক গ্লোরিয়া টালিয়ানি ফলাফলটিকে একটি “অবিশ্বাস্য সাফল্য” হিসাবে অভিহিত করেছেন, তিনি আশা করেছিলেন কেবলমাত্র এই ভ্যাকসিনটিই ৭৫ শতাংশ কার্যকর হবে।

এই বছরের শুরুতে ১০০ মিলিয়ন ভ্যাকসিন ডোজ সরবরাহের জন্য মার্কিন সরকারের সাথে ফাইজার এবং বায়োএনটেকের একটি ১.৯৫ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি রয়েছে। তারা ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং জাপানের সাথে সরবরাহ চুক্তিতে পৌঁছেছে।

তথ্যসূত্র : আলজাজিরা

Leave a Reply