সরকার ও জনগণ

প্রসপারিনা সরকার

একজন কর্তা যেমন পরিবারের সার্বিক দায়িত্ব পালন করে। সাধ্য অনুযায়ী পরিবারের সকল সদস্যদের অর্থনৈতিক যোগানের মাধ্যমে মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা সহ নৈতিকতা , সততা, ন্যায়-নীতি, মানবিক মুল্যবোধের শিক্ষা দেয়। অপরদিকে পরিবারের প্রতিটি সদস্যর দায়িত্ব কর্তব্য পরিবার প্রধানদের নিয়ম মেনে চলা, পরিবারের উন্নয়নে, সুনাম অর্জনে প্রত্যেক সদস্যদেরও গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রয়েছে । তেমনি সরকার দেশ ও আপামোর জনগণের সেবক ৷ সরকারের দায়িত্ব সমাজ, জাতির সার্বিক উন্নয়নে রাজনৈতিক রণকৌশল ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি , সামাজিক নিরাপত্তার শক্ত বলয় তৈরি, আইনের কঠিন অনুশাসন, বিধিবিধান সুনিশ্চিত করা।

সমাজের দুর্নীতি অন্যায় ও অপরাধকে নিয়ন্ত্রণ করা, নিরপেক্ষ প্রশাসণ ব্যবস্থা গড়ে তোলা এবং নিয়মিত পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে অবস্থার প্রেক্ষাপটে আইনের বিধিবিধান পরিবর্তন করা । জাতিকে বর্হি:বিশ্বের আক্রমণ থেকে রক্ষা ও দেশের উন্নত ভাবমূর্তি বজায় রাখা। আর সরকারের এই দায়িত্ব সুষ্ঠু সুন্দর ভাবে সম্পন্ন এবং সহযোগিতা করার জন্য প্রত্যেক নাগরিকেরও দায়িত্ব রয়েছে। একজন নাগরিকের দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়েই দেশপ্রেম তথা পারিবারিক শিক্ষা, নৈতিকতা, সততা মুল্যবোধ সুন্দর আচরণের অধিকারী একজন ব্যক্তি সৎ আদর্শ সুনাগরিকের পরিচয় বহন করে। সমাজে শতকরা ৩৫ ভাগ মানুষ স্ব স্ব বিবেক, নৈতিকতা নীতিবোধ দ্বারা পরিচালিত। ৩০ ভাগ মানুষ ধর্মীয় অনুশাসন দ্বারা পরিচালিত। ৩০ ভাগ মানুষ প্রশাসন আইনের ভয়ে সঠিক পথে চলে। আর বাকি ৫ ভাগ মানুষ অনৈতিক, নীতি ভ্রষ্ট, দুষ্ট নষ্ট চরিত্রের মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সরকার, প্রশাসন। এই সংখ্যা বৃদ্ধি হলে গোটা সমাজ, জাতিতে অন্যায়, দুর্নীতি, সামাজিক মুল্যবোধের অবক্ষয়, পাপ পঙ্কিলতা,ব্যাভিচারে ভরে যায়। তখন সমাজ তথা জাতির অধঃপতন নিশ্চিত। তখন সরকারকে যেমন অপরাধ দমনে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হয়, তেমনি দেশ ও জনগণের জন্য তা মঙ্গলজনক নয়। তাই জনগণকে নিজ থেকে উত্তম চরিত্রের, ভালো গুণাবলীর অধিকারী এবং একজন ভালো মানুষ হয়ে উঠতে হবে। দায়িত্বশীল হতে হবে। প্রত্যেক নাগরিকের দ্বারে দ্বারে গিয়ে জনগনণর ন্যায়নীতিবোধ জাগ্রত করা, সমাজ সচেতনতা, সৎ, আদর্শ উন্নত চরিত্রবান করা, কুসংস্কারমুক্ত, প্রগতিশীল মুক্ত চিন্তা চেতনায় বিশ্বাসী করে গড়ে তোলার কাজ, দায়িত্ব সরকারের একার নয়। এ দায়িত্ব কর্তব্য জনগণেরও। সমাজ ও দেশের প্রতি প্রত্যেক নাগরিকের কিছু দায়বদ্ধতা রয়েছে। সুতরাং প্রতিটি নাগরিকের উচিৎ স্ব স্ব অবস্থান থেকে, পরিবারে ,সমাজ, অফিস, আদালত, স্কুল-কলেজ সকল ক্ষেএ থেকে মানুষকে দেশ প্রেমে উজ্জীবিত করা, কুসংস্কার, ধর্মান্ধতা দুর করে নৈতিক মুল্যবোধ ও মানবিক শিক্ষা দিয়ে উত্তম চরিত্রের নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা।

সমাজ, জাতিকে সুন্দর করতে,স্হায়ী ভাবে উন্নত করতে সরকারের পাশাপাশি প্রত্যক নাগরিকদের করনীয় কর্ম সম্পাদন ও দায়িত্বপালন করতে হবে। তবেই সমাজ তথা দেশ সংখ্যাগত ও গুণগত মান নিয়ে সামাজিক, অর্থর্নৈতিক, শিক্ষায় স্হায়ী উন্নত এবং শিল্প সাহিত্য, সংস্কৃতি সমৃদ্ধ প্রগতিশীল একটি রাষ্ট্র গড়ে উঠবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: