বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের কৃতিত্ব জনসাধারণের- প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার বলেছেন, স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) গ্রুপ থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ গত ১২ বছর ধরে তার সরকারের অবিরাম প্রচেষ্টা, পরিকল্পনা ও কঠোর পরিশ্রমের ফসল।

এলডিসি থেকে বাংলাদেশের উত্তরণের জন্য জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ পাওয়া উপলক্ষে ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘এ কৃতিত্ব দেশের আপামর জনসাধারণের। সরকারে থেকে আমরা শুধু সুযোগ তৈরি করতে নীতিগত সহায়তা দিয়েছি। এটি জাতির জন্য ঐতিহাসিক ও গৌরবজ্জ্বল মুহূর্ত।’

তিনি তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে এটির আয়োজন করা হয়।

শেখ হাসিনা দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে উত্তরণের পর বাংলাদেশ বিশ্ব মঞ্চে একটি মর্যাদাপূর্ণ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হবে।

তিনি এই কৃতিত্বের জন্য দেশ-বিদেশে বাংলাদেশি নাগরিকদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

‘মাত্র সাড়ে ৩ বছরে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশে উন্নীত করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এই মহান নেতার হাতে প্রতিষ্ঠিত দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ স্বাধীনতার এই সুবর্ণজয়ন্তী বছরে দেশকে একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে,’ বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী এর কৃতিত্ব এদেশের জনগণকে দিয়ে বলেন, সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ মাইলফলক অর্জন সম্ভব হয়েছে।

তিনি বলেন, জাতির পিতার কন্যা হিসেবে নিজে এই উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় যুক্ত থাকতে পেরে এই অর্জনে আমি গর্বিত।

সূত্র : ইউএনবি

Leave a Reply